শুক্রবার | ২২শে অক্টোবর, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ | ৬ই কার্তিক, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ

দৈনিক পাবলিক বাংলা বিশ্বজুড়ে বাঙলার মুখপত্র
বিশ্বজুড়ে বাঙলার মুখপত্র

কালিয়ায় ড্রেজারে অবৈধভাবে বালু উত্তোলনে ঝুঁকিতে বাজার, সরকারি আশ্রায়ন প্রকল্প ঘরবাড়ি

কালিয়া প্রতিনিধি :

কালিয়ায় ড্রেজারে অবৈধভাবে বালু উত্তোলনে ঝুঁকিতে বাজার, সরকারি আশ্রায়ন প্রকল্প ঘরবাড়ি

কালিয়া (নড়াইল) প্রতিনিধিঃ নড়াইলের কালিয়া উপজেলার সীমান্তবর্তী মহাজন উত্তর পাড়া এলাকায় অবৈধ ড্রেজার মেশিন দিয়ে বালু উত্তোলন করে বিক্রির অভিযোগ পাওয়া গেছে। এলাকাবাসীর নিষেধাজ্ঞা উপেক্ষা করে সরকারী কোন অনুমোদন ব্যাতীত প্রতিনিয়ত বালু কেঁটে যাচ্ছে মৃত নবগঙ্গা নদী খননকারী কথিত ঠিকাদার বিপুল সরদার ও তার সহযোগীরা। স্থানীয় প্রভাবশালীদের ম্যানেজ করে প্রতিনিয়ত নদীর তলদেশ থেকে অবৈধভাবে বালু উত্তোলন করা হচ্ছে বলে তারা জানান। ২৯মে (শনিবার) সরেজমিনে গেলে সাংবাদিকদের উপস্থিতি টের পেয়ে বালু নিতে আসা বালুবাহী জাহাজ গুলো সরিয়ে নেওয়া হয়। বিপুল সরদার কালিয়া উপজেলার চান্দেরচর গ্রামের নজরুল সরদারের ছেলে। স্থানীয়রা জানান, কথিত ঠিকাদার বিপুল সরদার ও নজরুল সরদার বাপবেটা মিলে প্রভাবশালীদের মাশোহারা দিয়ে সরকারের অনুমোদন ছাড়া ভাড়া করা ড্রেজার দিয়ে দিনের পর দিন অবৈধ ভাবে বালু কেঁটে আসছে। আমরা নিষেধ করলে শোনেনা, বলে সরকারী পারমিশন আছে। নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক গ্রামবাসীরা জানান, প্রশাসনকে বৃদ্ধাঙ্গুলি দেখিয়ে প্রভাবশালী কয়েক জন নেতাদের সাথে গোপন বেঠক করে রাতেও চুরি করে বালু কাঁটা হচ্ছে।প্রশাসনের পারমিশন আনার দোহাই দিয়ে অবাধে তারা বালু কেঁটেই যাচ্ছে। ভূমিহীন গুচ্ছগ্রামবাসীরা প্রশাসনকে কঠোর অভিযানের মাধ্যমে ড্রেজার বাযেয়াপ্ত করাসহ বালু সন্ত্রাসী ও তাদের দোষোরদের আইনের আওতায় এনে কঠোর শান্তির আহবান জানান।
বড়দিয়া বাজারের বাসিন্দা অবঃ প্রধান শিক্ষক মোল্যা শাহাদৎ হোসেন বলেন, বালু মহাল ও মাটি ব্যবস্থাপনা আইন ২০১০ অনুযায়ী সড়ক, কালভার্ট, বিভিন্ন স্থাপনার সর্বনিম্ন এক কিলোমিটারের মধ্যে নদী, খাল ও পুকুর থেকে ড্রেজার মেশিন দিয়ে বালু উত্তোলন করা যাবে না। অথচ কালিয়া উপজেলার মাউলী ইউনিয়নের অংশে নবগঙ্গা নদীর মুখের অদুরে যেখানে সরকারের অনুমোদন ছাড়া বালু কর্তন হচ্ছে তার ২শত গজ দক্ষিনে বড়দিয়া বাজার, প্রায় দেড়শত গজ দক্ষিন-পশ্চিমে মহাজন গুচ্ছগ্রাম এবং প্রায় একশত গজ উত্তরে নদীর তীরে লোহাগড়া উপজেলার অধীন তেলকাড়া সরকারি আশ্রায়ন প্রকল্প রয়েছে। এভাবে ড্রেজারে বালুু উত্তোলন চলতে থাকলে অচিরেই সরকারি প্রকল্পসহ ঐতিহ্যবাহী বড়দিয়া বাজার চরম হুমকিতে পড়বে। মহাজন উত্তর পাড়া গুচ্ছগ্রামের মৃত যোগেন বিশ্বাসের ছেলে সুবাস বিশ্বাস (৭০) বলেন, আমরা ভূমিহীন, নদী কাঁটার কারণে আমাদের বাড়ী ভেঙ্গে নদীর কুলে সরকারি জমিতে ঘর তুলেছি, এভাবে বালু কাঁটলে ভাঙ্গনের কবলে পড়তে আর দেরী হবেনা। আমি সরকারকে বালু কাঁটা বন্ধসহ এদের বিরুদ্ধে ব্যাবস্থা গ্রহনের জন্য অনুরোধ করছি।
ভুমিহীন আফছার বিশ্বাসের স্ত্রী রিজিয়া বেগম (৬০) বলেন, আমরা ওদের বার বার বলছি এভাবে বালু কাঁটার ফলে নদী ভেঙ্গে গেলে আমরা থাকবো কেথায়? কিন্তু তাও ওরা শোনেনা বালি কাঁটার তালেই আছে। সরকার ওদের বিচার করুক।
ওই গ্রামের মকবুল খাঁর ছেলে নজরুল খাঁ (৩৫) বলেন, আমরা সবাই মিলে ওদের বালু কাঁটতে নিষেধ করলে বলে আমাদের সরকারী পারমিশন আছে। এভাবে মিথ্যা বলে দিন-রাত ২৪ ঘন্টা বালু কাঁটে। এদের কঠিন শাস্তি চাই। ফারুক খাঁর ছেলে স্কুল ছাত্র জিল্লুরু রহমান বলেন, আমরা ভুমিহীন মানুষ এভাবে বালি কাঁটলে আমাদের বাড়ী ভেঙ্গে গেলে আমরা চরম ক্ষতিগ্রস্থ হবো। আমরা সরকারের কাছে অবৈধ বালু কাঁটা বন্ধের আহবান জানাই এবং অভিযুক্তদের উপযুক্ত শাস্তি চাই।
এ বিষয়ে ড্রেজার মালিক হয়রত আলী ও তার ছেলে খায়রুল ইসলাম বলেন, আমরা দিন ৩৫০০ টাকায় ভাড়া খাটি। আমরা কয়েকদিন এখানে কাজ করছি। প্রশাসন থেকে বাঁধা আসায় আপাতত কাজ বন্ধ রয়েছে। ঠিকাদার কর্তৃপক্ষ উপরে যোগাযোগ চালাচ্ছে অনুমোদন পেলে আবার শুরু করবো।
ঠিকাদার বিপুল সরদার ও তার পিতা নজরুল সরদার বলেন, প্রশাসন থেকে বাঁধা আসায় আপাতত কাজ বন্ধ রাখছি। উপরে যোগাযোগ করছি অনুমোদন পেলে আবার শুরু করবো।
এ বিষয়ে উপজেলা সহকারী কমিশনার (ভুমি) জহুরুল ইসলাম বলেন, আপনাদেও মাধ্যমে বিষয়টি জানতে পারলাম। অবৈধ ড্রেজার মেশিন দিয়ে যদি কেউ বালু উত্তোলন করে তাদের বিরদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

আপনার মতামত দিন

Posted ৯:২৬ অপরাহ্ণ | মঙ্গলবার, ০১ জুন ২০২১

এ বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

এ বিভাগের আরও খবর

শনি রবি সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র
 
১০১১১২১৩১৪১৫
১৬১৭১৮১৯২০২১২২
২৩২৪২৫২৬২৭২৮২৯
৩০৩১  
ড. সৈয়দ রনো   উপদেষ্টা সম্পাদক   
শাহ্ বোরহান মেহেদী, সম্পাদক ও প্রকাশক
,
ঢাক অফিস :

২২, ইন্দারা রোড (তৃতীয় তলা), ফার্মগেট, তেজগাও, ঢাকা-১২১৫।

নরসিংদী অফিস : পাইকসা মেহেদী ভিলা, ঘোড়াশাল, নরসিংদী। ফোনঃ +8801865610720

ই-মেইল: news@doinikpublicbangla.com