সোমবার | ২৬শে জুলাই, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ | ১১ই শ্রাবণ, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ

দৈনিক পাবলিক বাংলা বিশ্বজুড়ে বাঙলার মুখপত্র
বিশ্বজুড়ে বাঙলার মুখপত্র

কোটি টাকা নিয়ে আত্মসাৎ কারলো আইয়ুব আলী

কোটি টাকা নিয়ে আত্মসাৎ কারলো আইয়ুব আলী

চট্টগ্রাম থেকে : গল্প ফেঁদে মানুষের কাছ থেকে কোটি কোটি টাকা হাতিয়ে নেওয়ার অভিযোগে গ্রেপ্তার হওয়া আইয়ুব আলী নামের এক যুবককে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য একদিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেছেন আদালত।
গত সোমবার চট্টগ্রাম মহানগর হাকিম শফি উদ্দিনের আদালত এই আদেশ দিয়েছেন বলে জানান বাদী পক্ষের আইনজীবী আসাদুজ্জামান খাঁন।

আইয়ুব আলী চট্টগ্রামের সাতকানিয়ার দেওদিঘী মুছার বাড়ির আশরাফ আলীর ছেলে। তিনি নগরের বায়েজিদ বোস্তামী থানাধীন আতুরার ডিপো মিরপাড়া এলাকায় ‘ডায়মন্ড ফার্মেসি’ নামের একটি প্রতিষ্ঠানের মালিক।

এর আগে গত ২৩ জুন বায়েজিদ বোস্তামী থানা এলাকা থেকে আইয়ুব আলীকে আটক করেন নগর গোয়েন্দা পুলিশের সদস্যরা। একইদিন তার বিরুদ্ধে বখতিয়ার হোসেন নামের একজন মোবাইলের যন্ত্রাংশের ব্যবসায়ী বায়েজিদ বোস্তামী থানায় মামলা করেন।

এরপর ২৪ জুন আইয়ুব আলীকে জিজ্ঞাসাদের জন্য পাঁচ দিনের রিমান্ড আবেদনসহ তাকে আদালতে হাজির করে পুলিশ। সেদিন আদালত জানায়, রিমান্ড আবেদনের শুনানি হবে ২৮ জুন (সোমবার)। এরপর আজ শুনানি শেষে আদালত একদিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেন।

ভুক্তভোগী বখতিয়ার হোসেন বলেন, ‘প্রতারক আইয়ুব ওষুধের ব্যবসা করেন। ব্যবসা করতে বিভিন্ন সময় লাখ, দুই লাখ টাকা চাইলে, আমি দিই। সেসব টাকা যথাসময়ে ফেরত দিয়ে তিনি আমার বিশ্বাস অর্জন করেন। ওষুধ ব্যবসার প্রসার ঘটানোর কথা বলে লাভের ভিত্তিতে গত নভেম্বরে আমার কাছ থেকে ২০ লাখ টাকা নেন তিনি। পরে দফায় দফায় আরও এক কোটি টাকা নেন আইয়ুব। এই টাকার বিপরীতে তিনি আমাকে এক কোটি ২০ লাখ টাকার চেক দিয়েছেন। এ সংক্রান্ত লিখিত চুক্তিপত্রও হয়েছে আমাদের মধ্যে। এরপর হঠাৎ করে আইয়ুব যোগাযোগ বন্ধ করে আত্মগোপনে চলে যায়।’

‘পরে জানতে পারি, আরও বহু মানুষের কাছে নানা গল্প বলে কোটি কোটি টাকা হাতিয়ে নিয়েছেন আইয়ুব। এ টাকা দিয়ে স্ত্রীর নামে জমি কিনেছেন তিনি। এখন তিনি বিদেশে পালিয়ে যাওয়ার চেষ্টা করছেন। তখন গোয়েন্দা পুলিশের কাছে অভিযোগ করলে তারা আইয়ুবকে আটক করার পর বেশ কয়েকজন ভুক্তভোগীর তথ্য পাওয়া যায়।’ বলেন বখতিয়ার।

পুলিশ সূত্রে জানা গেছে, এ পর্যন্ত ৬ জন ব্যক্তি অভিযোগ করেছেন, তাদের কাছ থেকে মোট দুই কোটি ৫৪ লাখ ২৫ হাজার টাকা হাতিয়ে নিয়েছেন আইয়ুব আলী।

এর মধ্যে নগরের বায়েজিদ বোস্তামী থানার আতুরার ডিপো এলাকার রুহুল আমিন ম্যানশনের রেজাউল করিমের কাছ থেকে ১৩ লাখ ৩৫ হাজার টাকা ও তার ভাই মাছুম চৌধুরীর কাছ থেকে ১০ লাখ টাকা আইয়ুব নিয়েছেন বলে অভিযোগ উঠেছে।

এছাড়া হাজীপাড়ার মো. নাজিমুদ্দিনের কাছ থেকে ৩০ লাখ টাকা, আতুরার ডিপোর মোজাহিদুল ইসলামের কাছ থেকে ৪২ লাখ, চান্দগাঁও আবাসিকের মোসলেহ উদ্দিনের কাছ থেকে ৩৯ লাখ টাকা আইয়ুব নিয়েছেন বলে ভুক্তভোগীরা অভিযোগ করেছেন।

এর বাইরে আরও বহু মানুষ আইয়ুব আলীর প্রতারণার শিকার হয়েছেন বলে ধারণা করছে পুলিশ।

ভুক্তভোগীরা জানান, আইয়ুব আলীর প্রতারণার ধরণ এমএলএম কোম্পানীর মতো। তিনি ভুক্তভোগীকে জানান, বেক্সিমকো ফার্মার ম্যানেজারকে ৩০ লাখ টাকার ওষুধ টার্গেট দেয়া হয়েছে। ম্যানেজার ১৫ লাখ টাকা পর্যন্ত বিক্রি করেছে। আর ১৫ লাখ টাকার ওষুধ বিক্রি করতে পারেননি। তাকে ১৫ লাখ টাকা দিলে লাভসহ পরে টাকা ফেরত দেয়া হবে।’

এভাবে টাকা চাইবার আগে ২০-৫০ হাজার টাকা ধার নিয়ে যথাসময়ে ফেরত দেন আইয়ুব। ফলে তার প্রতি মানুষের আস্থা, বিশ্বাস জন্মায়। এরপর বড় লাভের লোভ দেখিয়ে মোটা অংকের টাকা নিয়ে আত্মগোপনে চলে যায় আইয়ুব। ১০ লাখ টাকা দিলে এক মাসে ৩০ থেকে ৪০ হাজার টাকা লাভ দেয়ার লোভ দেখান তিনি।

আসামি আইয়ুবকে রিমান্ডে নিয়ে অভিযোগের মূল রহস্য উদঘাটন করা হবে বলে আদালতকে জানিয়েছেন মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা বায়েজিদ বোস্তামী থানার এসআই কাজী মোহাম্মদ তানভীরুল আজম।

আপনার মতামত দিন

Posted ৫:০০ অপরাহ্ণ | বুধবার, ৩০ জুন ২০২১

এ বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

এ বিভাগের আরও খবর

শনি রবি সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র
 
১০১১১২১৩১৪১৫১৬
১৭১৮১৯২০২১২২২৩
২৪২৫২৬২৭২৮২৯৩০
৩১  
ড. সৈয়দ রনো   উপদেষ্টা সম্পাদক   
শাহ্ বোরহান মেহেদী, সম্পাদক ও প্রকাশক
,
ঢাক অফিস :

২২, ইন্দারা রোড (তৃতীয় তলা), ফার্মগেট, তেজগাও, ঢাকা-১২১৫।

নরসিংদী অফিস : পাইকসা মেহেদী ভিলা, ঘোড়াশাল, নরসিংদী। ফোনঃ +8801865610720

ই-মেইল: news@doinikpublicbangla.com