সোমবার | ২৬শে জুলাই, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ | ১১ই শ্রাবণ, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ

দৈনিক পাবলিক বাংলা বিশ্বজুড়ে বাঙলার মুখপত্র
বিশ্বজুড়ে বাঙলার মুখপত্র

ঠাকুরগাঁওয়ে সরকারি দোকান বরাদ্দে অনিয়ম-অর্থ লেনদেনের অভিযোগ

সালাম রুবেল স্টাফ রিপোর্টার::-

ঠাকুরগাঁওয়ে সরকারি দোকান বরাদ্দে অনিয়ম-অর্থ লেনদেনের অভিযোগ

ঠাকুরগাঁওয়ে সরকারি দোকান বরাদ্দে অর্থ লেনদেনসহ নানা অনিয়মের অভিযোগ উঠেছে। এতে তীব্র ক্ষোভ প্রকাশ করেছে স্থানীয়রা। জেলা সদরের ভুল্লী বাজার এলাকায় দোকান বরাদ্দ নিয়ে এ অভিযোগ তুলেন তারা।

স্থানীয় ব্যবসায়ী ও এলাকাবাসিরা জানান, দীর্ঘদিন ধরে ভুল্লী বাজারে ব্যবসা পরিচালনা করে আসছিলেন। গেল মার্চে এসিল্যান্ড এর পক্ষ থেকে একটি নোটিশ দিয়ে ৫১টি দোকান উচ্ছেদ করা হয়। পরে সেখানে নতুন করে দোকান বরাদ্দের জন্য দরখাস্ত আহবান করা হয়। আহবানে হাটের ব্যবসায়ীদের পাশাপাশি বিভিন্ন প্রভাবশালী ব্যক্তি, রাজনীতিবিদরা আবদেন করেন। সেই প্রেক্ষিতে গেল বৃহস্পতিবার (২৪ জুন) এসিল্যান্ড উপস্থিত থেকে নতুন করে ৮৭ জনকে দোকান বরাদ্দ দেন।
বাজারের ব্যবসায়ী সাকির উদ্দিন, রাকিব, হেলাল ,আব্দুল মজিদ, মুকুলসহ অনেকে অভিযোগ কওে বলেন, বাজারটিতে দোকান ছিলো না এমন অনেকজনকেই দোকান বরাদ্দ দেয়া হয়েছে মোটা অঙ্কের টাকার বিনিময়ে। এছাড়া দোকানের সংখ্যা বৃদ্ধি করায় দোকান খুবই ছোট করা হয়েছে। এই অর্থ লেনদেনের সাথে স্থানীয় ইউপি চেয়ারম্যান যোগসাজস করে দোকান প্রতি ৫০ হাজার থেকে ৩ লাখ টাকা উত্তোলন করেছেন বিভিন্ন জনের কাছে। ফলে প্রকৃত ব্যবসায়ীরা দোকান বরাদ্দ থেকে বঞ্চিত হয়েছে।
ভুল্লী হাট বণিক সমিতির সাবেক সহ-সভাপতি আসলাম পারভেজ জানান, এক এগারো এর সময় ভুল্লী বাজার উচ্ছেদ করা হয়েছিলো। সে সময়ের জেলা প্রশাসক সাফায়েত হোসেন লটারির মাধ্যমে এই ব্যবসায়ীদের দোকান বরাদ্দ দেন। কিন্তু এতো বছর পর দোকানগুলোকে অবৈধ বলে উচ্ছেদ করা হয়। পরে স্থানীয় চেয়ারম্যান ও সরকার দলীয় কিছু নেতাসহ দায়িত্বপ্রাপ্তদের যোগসাজসে অর্থের বিনিময়ে দোকান বরাদ্দ দিচ্ছে। যা কাম্য নয়।
এ বিষয়ে স্থানীয় এলাকাবাসি ও চেম্বার অফ কমার্সের পরিচালক সাওন চৌধুরী অভিযোগ করে বলেন, সরকারের রাজস্ব আয়ের লক্ষে নতুন করে দোকানগুলো বরাদ্দ দেয়া হয়েছে। কিন্তু প্রকৃত ব্যবসায়ীরা অভিযোগ করছেন ট্রেড লাইসেন্স দিবেন চেয়ারম্যান আর যেহেতু চেয়ারম্যান ইউনিয়ন আ’লীগের সাধারণ সম্পাদক তিনিই অর্থ লেনদেন করেছেন বলে শোনা যাচ্ছে। আমরা চাই বিষয়টি তদন্ত করে দোকানগুলো সুষ্ট বন্টন করা হোক। অন্যথায় এনিয়ে আইনশৃংখা পরিস্থিতি অবনতির শংকা রয়েছে।
এ বিষয়ে সংশ্লিস্ট বালিয়া ইউনিয়নের চেয়ারম্যান নূর-এ আলম ছিদ্দিকি (মুক্তির) সাথে যোগাযোগ করা হলে অর্থ লেনদেনের অভিযোগ অস্বীকার করে আর কোন মন্তব্য করতে রাজি হয়নি।

ঠাকুরগাঁও সদর উপজেলা সহকারী কমিশনার (ভূমি) কামরুল হাসান সোহাগ জানান, দোকান বরাদ্দের বিষয়ে অনিয়মের অভিযোগ থাকলে তা খতিয়ে দেখা হবে। ঘর বরাদ্দে টাকা লাগবেই বা কেন? সরকারি ফি যা আছে আমরা শুধু মাত্র সেটাই নিয়েছি।
এ বিষয়ে সদর উপজেলা নির্বাহী অফিসার আব্দুল্লাহ আল মামুন বলেন, চেয়ারম্যান দোকান বরাদ্দে টাকা নিয়েছে এ বিষয়ে কেউ লিখিত অভিযোগ করেন নি। অভিযোগ পেলে তদন্ত সাপেক্ষে ব্যবস্থা নেয়া হবে।

আপনার মতামত দিন

Posted ৬:২০ অপরাহ্ণ | মঙ্গলবার, ২৯ জুন ২০২১

এ বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

এ বিভাগের আরও খবর

শনি রবি সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র
 
১০১১১২১৩১৪১৫১৬
১৭১৮১৯২০২১২২২৩
২৪২৫২৬২৭২৮২৯৩০
৩১  
ড. সৈয়দ রনো   উপদেষ্টা সম্পাদক   
শাহ্ বোরহান মেহেদী, সম্পাদক ও প্রকাশক
,
ঢাক অফিস :

২২, ইন্দারা রোড (তৃতীয় তলা), ফার্মগেট, তেজগাও, ঢাকা-১২১৫।

নরসিংদী অফিস : পাইকসা মেহেদী ভিলা, ঘোড়াশাল, নরসিংদী। ফোনঃ +8801865610720

ই-মেইল: news@doinikpublicbangla.com