মঙ্গলবার | ৭ই ডিসেম্বর, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ | ২২শে অগ্রহায়ণ, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ

দৈনিক পাবলিক বাংলা বিশ্বজুড়ে বাঙলার মুখপত্র
বিশ্বজুড়ে বাঙলার মুখপত্র

বাহুবলে ‘নবজাগরণ’ এর উদ্যোগে অগ্নিদগ্ধ শিশুকন্যার প্লাস্টিক, সার্জারী, অপারেশন সম্পূর্ণ নাজমুল ইসলাম হৃদয়ঃ হবিগঞ্জের বাহুবল

নাজমুল ইসলাম হৃদয়, বাহুবল থেকে

বাহুবলে ‘নবজাগরণ’ এর উদ্যোগে অগ্নিদগ্ধ শিশুকন্যার প্লাস্টিক, সার্জারী, অপারেশন সম্পূর্ণ  নাজমুল ইসলাম হৃদয়ঃ হবিগঞ্জের বাহুবল

বাহুবলে ‘নবজাগরণ’ এর উদ্যোগে অগ্নিদগ্ধ শিশুকন্যার প্লাস্টিক, সার্জারী, অপারেশন সম্পূর্ণ

নাজমুল ইসলাম হৃদয়ঃ হবিগঞ্জের বাহুবল উপজেলার সামাজিক ও মানবিক কর্মকান্ডে সুনামধন্য ‘নবজাগরণ সামাজিক ও স্বেচ্ছাসেবী যুব সংগঠন’ অগ্নিদগ্ধ শিশুকন্যা ঝর্ণার চিকিৎসার দায়িত্ব নিয়ে প্লাস্টিক, সার্জারী, অপারেশন সফল ও সুষ্টভাবে সম্পন্ন হওয়ায় মানবতার আরেক উজ্জ্বল দৃষ্টান্ত স্থাপন করল।

১৯ জুন রোজ শনিবার বাহুবল উপজেলার সামাজিক ও মানবিক কর্মকান্ডে ‘নবজাগরণ সামাজিক ও স্বেচ্ছাসেবী যুব সংগঠন’ অগ্নিদগ্ধ শিশুকন্যা ঝর্ণার চিকিৎসার দায়িত্ব নিয়ে সিলেট ট্রমা সেন্টারে ঝর্ণার প্লাস্টিক, সার্জারী, অপারেশন সফল ও সুষ্টভাবে সম্পন্ন হয়েছে । বর্তমানে অগ্নিদগ্ধ শিশুকন্যা ঝর্ণার আগের থেকে অনেক সুস্থ রয়েছে।

জানা যায়, বাহুবল উপজেলা সদর ইউনিয়নের রাজাপুর গ্রামের বাসিন্দা দিনমজুর মোঃ তাজুল মিয়ার মাত্র ৮ বছরের কন্যাশিশু মোছাঃ ঝর্ণা আক্তার শিশু গত জানুয়ারি মাসে ধান সিদ্ধ দেওয়ার উনুনে পরে গিয়ে শরিরে আগুন লেগে হাতের দুই বাহু, বুকের পাঁজর ও পেটের মাংশ সহ বেশিরভাগ অংশই পুড়ে যায়। পরববর্তীতে সাময়িক চিকিৎসা শেষে একসময় টাকার অভাবে তার চিকিৎসা বন্ধ হয়ে যায়। দিনমজুর তাজুল মিয়া পরিবারের মুখে দুমুঠো ভাত দিতেই যার হিমসিম খেতে হয় তার কাছে এই চিকিৎসার খরচ বহন করা স্বপ্ন মাত্র। তাই অল্প কয়েকদিনের অপূর্ণ চিকিৎসা শেষে বাধ্য হয়ে হাসপাতাল থেকে তাকে বাড়িতে নিয়ে আসেন তাজুল মিয়া। তারপর থেকে থেমে থেমে কয়েকজনের কিছু আর্থিক সহায়তায় চিকিৎসা চললেও পূর্ণাঙ্গ চিকিৎসা হয়ে উঠেনি। এভাবেই ঝলসে যাওয়া শরীরের ক্ষত বয়ে বেড়াচ্ছে ছোট্ট শিশু ঝর্ণা আক্তার। দিনের পর দিন বিনা চিকিৎসায় ও বিনা যত্নে এই ক্ষত আরও ভয়াবহ রুপ নিচ্ছে। ডাক্তারের পরামর্শ অতিদ্রুত দুটি অপারেশন না করলে হয়তো আরও ভয়ানক রুপ নিতে পারে ঝর্ণা আক্তারের বুকের পাঁজরের বিশাল ক্ষত। দিন দিন সে মৃত্যুর দিকে ধাবিত হচ্ছে অগ্নিদগ্ধ শিশুকন্যা ঝর্ণা। এই খবর পেয়ে নবজাগরণ সামাজিক ও স্বেচ্ছাসেবী যুব সংগঠন এর সদস্যদের পক্ষ থেকে কিছু মানবিক সহযোগিতা নিয়ে ১১ জুন তারিখ রোজ শনিবার ঝর্ণা আক্তারের বাড়িতে হাজির হয় নবজাগরণ এর স্বেচ্ছাসেবকরা। তার পরিবারের সাথে কথা বলে জানতে পারে মেয়ের চিকিৎসা করাতে গিয়ে ভিটেমাটি বিক্রি করে উদ্বাস্তু দিনমজুর তাজুল মিয়া এখন ঋণে হাবুডুবু খাচ্ছেন। তখন নবজাগরণ সামাজিক ও স্চ্ছোসেবী যুব সংগঠন এর স্বেচ্ছাসেবকরা অগ্নিদগ্ধ ঝর্ণার পরিবারের মুখে সব কথা শুনে তারা সিদ্ধান্ত নিয়েছিল অগ্নিদগ্ধ ঝর্ণার পরবর্তী চিকিৎসার সম্পূর্ণ দায়িত্ব নেওয়ার হয়েছিল।

এ ব্যাপারে নবজাগরণ সামাজিক ও স্চ্ছোসেবী যুব সংগঠন এর স্বেচ্ছাসেবকরা বলেন,অগ্নিদগ্ধ ঝর্ণার পরিবারের মুখে সব কথা শুনে আমরা সিদ্ধান্ত নিয়েছিলাম অগ্নিদগ্ধ ঝর্ণার পরবর্তী চিকিৎসার সম্পূর্ণ দায়িত্ব আমরা করবো। বর্তমানে অগ্নিদগ্ধ ঝর্ণার শিশুর প্লাস্টিক, সার্জারী, সুষ্টভাবে অপারেশন সম্পন্ন হয়েছে। তাই আমার সফলতা অর্জন করেছি। আমরা অনেক উৎসাহী, আমাদের ভাষ্যমতে আমাদের প্রচেষ্টায় মৃত্যু পথযাত্রী একটি শিশু সুস্থ হয়ে ফিরে আসতে পারেছে। বর্তমানে শিশুটির চিকিৎসা চলমান রয়েছে । আমাদের পাশে সমাজের বিত্তবান মানুষ এসে দাঁড়ালে হয়তো আরও অনেক মানুষকে সেবা দিতে পারবো।

আপনার মতামত দিন

Posted ৮:০৮ পূর্বাহ্ণ | রবিবার, ২০ জুন ২০২১

এ বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

এ বিভাগের আরও খবর

শনি রবি সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র
 
১০
১১১২১৩১৪১৫১৬১৭
১৮১৯২০২১২২২৩২৪
২৫২৬২৭২৮২৯৩০৩১
ড. সৈয়দ রনো   উপদেষ্টা সম্পাদক   
শাহ্ বোরহান মেহেদী, সম্পাদক ও প্রকাশক
,
ঢাক অফিস :

২২, ইন্দারা রোড (তৃতীয় তলা), ফার্মগেট, তেজগাও, ঢাকা-১২১৫।

নরসিংদী অফিস : পাইকসা মেহেদী ভিলা, ঘোড়াশাল, নরসিংদী। ফোনঃ +8801865610720

ই-মেইল: news@doinikpublicbangla.com