রবিবার | ৫ই ফেব্রুয়ারি, ২০২৩ খ্রিস্টাব্দ | ২২শে মাঘ, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ

দৈনিক পাবলিক বাংলা বিশ্বজুড়ে বাঙলার মুখপত্র
বিশ্বজুড়ে বাঙলার মুখপত্র

খুলনার অন্যতম মানুষ চিত্র শিল্পী মিলন বিশ্বাস

শেখ শহীদুল্লাহ আল আজাদ, খুলনা থেকে :

খুলনার অন্যতম মানুষ চিত্র শিল্পী মিলন বিশ্বাস

মোঃ শেখ শহীদুল্লাহ্ আল আজাদ. স্টাফ রিপোর্টার : খুলনা সহ দেশের স্বনামধন্য সামাজিক ও সাংস্কৃতিক সংগঠনের প্রাণ চিত্র শিল্পী মিলন বিশ্বাস।
চিত্র শিল্পী মিলন বিশ্বাস খুলনার আর্ট একাডেমির সহ বিভিন্ন সংগঠনের সাথে একত্রিত হয়ে সামাজিক ও সাংস্কৃতিক কর্মকাণ্ড চালিয়ে যাচ্ছেন নির্বিঘ্নে” যার জীবনে পথ চলার মাঝে মানুষের সাথে চিত্র অংকন, যাদু বিদ্যা সহ গীতিকার ও সুরকার, কবিতা সহ সকল বিষয়ে আন্তরিক ভাবে কাজ করে চলছেন, মানুষের মাঝে চিত্র শিল্পী মিলন বিশ্বাস।
এ দিকে তিনি তার জীবন সম্পর্কে বলেন” জীবন শেষ হলে মুক্তি পেতাম “মা”
ভালো মন্দ বোঝার পর থেকে নিজের শরীর সুস্থ রাখার জন্য একটা মিনিটও চেষ্টা করিনি। শুধু ভুল সাধনায় জীবন গড়ার চেষ্টা করলাম। মনে করি এই ক্ষনস্থায়ী জীবনে মৃত্যুর পরেও মানুষের মাঝে বেঁচে থাকার জন্য প্রতিদিন ২১ঘন্টা কাজ করি। ছবি আঁকা, জাদু খেলার সাধনা, কবিতা লেখা,গান লেখা, সামাজিক কাজে নিজেকে নিয়োজিত রাখতে চেষ্টা করি, খুলনা আর্ট একাডেমির ক্লাস, ফেসবুকে যে যেমন তথ্য জানতে চায়,২টি ইউটিউব চ্যানেল পরিচালনা করি,এই সব কাজ শেষ করতে করতে কখন যে রাত শেষ হয়ে যায় জানিনা।এমন করে সময় পার করি শুধু একটু লাল চায়ের চাহিদা করি।বাকিটা কি অন্যকে খুশি করার চেষ্টা করেছি তাই কাউকে কিছুই দিতে পারিনি,পারিনি কাউকে খুশি করতে।

এ দিকে চিত্র শিল্পী নিজের রেখে যাওয়া কিছু কাজ সম্পর্কে বলেন” আমি মানুষ হয়ে মানুষের জন্য কিছু করতে চেষ্টা করে চলছি। চিত্র শিল্পী মিলন বিশ্বাস তাঁর সৃষ্টি সম্পর্কে বলেন।

১) বাংলাদেশ ভারত চারুকলা ভর্তি কোচিং ১৮৭জন ছাত্র /ছাত্রী পড়ার সুযোগ করে দিয়েছি।
২)৪০০পিচ নিজের মতো নিজের হাতে আঁকা ছবি।
৩)১০০০ এর মতো গান, কবিতা লেখা পত্রপত্রিকায় প্রকাশিত হয়েছে এবং ২টি বইয়ে প্রকাশিত হলো।
৪)জাদু বিদ্যা সাধনা চলমান ২০টির মতো
৫)মুখ দিয়ে ছবি এঁকে সাধনা অর্জন।
৬)৬টি সন্মাননা স্মারক অর্জন।
৭) খুলনা আর্ট একাডেমি প্রতিষ্ঠানে ১০০+ছাত্র,ছাত্রী নিয়ে পরিচালনা করেছি ২০০৩ সাল থেকে।
৮) ইউটিউব ছবি আঁকা-১৮০০টি ভিডিও করেছি।
৯) ইউটিউব গান ও কবিতা-২৬৫টি ভিডিও তৈরি হলো সুনামধন্য সব শিল্পী দিয়ে।তাতে কি প্রয়োজন হয়েছে।

উক্ত সকল বিষয়ে দুঃখ প্রকাশ করে তিনি আরও বলেন, এখন পর্যন্ত পাশে থেকে দিক নির্দেশনা দিবে এমন কোন অভিভাবক পেলাম না। বাবা মা অর্থ দিয়েছে কিন্তু পাশে থেকে কেউ সাহায্য করেনি তারাও আজ অচল এখন আমি বড় একা হয়ে গেছি ,টাকার সাধনা করিনি কখনো এটাই ছিলো আমার বড় ভুল ,উপরের এতো কিছু করেও তবু মনে হয় কি করছি সংসারের জন্য জীবনটা মনে হয় ব্যর্থ ময়,
এখন শুধু অপেক্ষায় কখন চিরনিদ্রা হয়।

আপনার মতামত দিন

Posted ৭:২৪ অপরাহ্ণ | রবিবার, ১৯ জুন ২০২২

এ বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

এ বিভাগের আরও খবর

ড. সৈয়দ রনো   উপদেষ্টা সম্পাদক   
শাহ্ বোরহান মেহেদী, সম্পাদক ও প্রকাশক
,
ঢাক অফিস :

২২, ইন্দারা রোড (তৃতীয় তলা), ফার্মগেট, তেজগাও, ঢাকা-১২১৫।

নরসিংদী অফিস : পাইকসা মেহেদী ভিলা, ঘোড়াশাল, নরসিংদী। ফোনঃ +8801865610720

ই-মেইল: news@doinikpublicbangla.com